Breaking News
recent

চুলের যত্নে তেল প্রয়োজন, অবশ্য পুরো চুলে তেল ম্যাসাজ না করলেও ক্ষতি

নিয়মিত যত্নে চুল থাকবে সুন্দর। মডেল: তানহা, কৃতজ্ঞতা: হারমনি স্পা, ছবি: সুমন ইউসুফ
‘চুল তার কবেকার অন্ধকার বিদিশার নিশা’—জীবনানন্দের কাব্যিক বর্ণনায় উঠে আসা বনলতা সেনকে কল্পনা করলে রূপলাবণ্যে উজ্জ্বল, দিঘলকেশী এক নারীর ছবিই ভেসে আসে চোখের সামনে। বাঙালি নারীর লম্বা, কালো চুল যেন স্বমহিমায় আলোকিত; সৌন্দর্যে অনবদ্য। চিরন্তন এ ছবি আজকের দিনে অনেকাংশেই পরিবর্তিত। তবে দিঘল কালো চুলের মহিমা কমেনি এক বিন্দু।
আজকের কর্মজীবী নারী নিয়মিত বেরোচ্ছেন ঘরের বাইরে। এই সময়টাতে হুট করেই বাতাসে ধুলা উড়ছে, আবার ঝুম বর্ষণে ভিজে যাওয়ার আশঙ্কাও থাকছে। যাঁদের চুল বেশ লম্বা, তাঁরা একটু ঝামেলায় পড়ছেন বটে।
হারমনি স্পা-এর আয়ুর্বেদিক রূপবিশেষজ্ঞ রাহিমা সুলতানা জানালেন, চুল সুস্থ ও সুন্দর রাখতে নিয়মিত যত্নের বিকল্প নেই। আর লম্বা চুলের জন্য প্রয়োজন একটু বাড়তি যত্ন। ধুলা-ময়লা চুলের ক্ষতি করলেও সঠিক যত্নে চুল থাকবে উজ্জ্বল ও মসৃণ। জেনে নেওয়া যাক তার কিছু পরামর্শ-

নিয়মিত যত্নে
চুলের যত্নে তেল প্রয়োজন, অবশ্য পুরো চুলে তেল ম্যাসাজ না করলেওÿক্ষতি নেই। তবে মাথার ত্বকে ভালোভাবে তেল ম্যাসাজ করতে হবে। ধুলা-ময়লার প্রতিকারে একদিন অন্তর শ্যাম্পু তো করবেনই। শ্যাম্পুর পর কন্ডিশনার লাগানো প্রয়োজন। চুল শুকাতে সময় লাগে বলে যাঁরা প্রতিদিন চুল ভেজাতে চান না, তাঁরা একদিন পর পর চুল ধুয়ে নিতে পারেন। শ্যাম্পু বা কন্ডিশনার লাগানোর সময় সজোরে চুল ঘষা যাবে না, বরং আলতো হাতে লাগাতে হবে।

ভেজা চুল
ভেজা চুল শুকাতে হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করা উচিত নয়। ফ্যানের বাতাসে চুল শুকিয়ে নিতে পারেন। আবার গোসলের পর কোথাও বসে চুলগুলোকে সামনের দিকে এনে হালকাভাবে মুছে নেওয়া ভালো। ভেজা চুল আঁচড়াবেন না। ভেজা চুল বাঁধাও ঠিক নয়। ঝড়-বৃষ্টিতে চুল ভিজে গেলে যত দ্রুত সম্ভব চুল শুকিয়ে নিন।

দিনমান চুলের ভাবনা?
সারা দিনে চুল বাঁধা থাকবে না কি খোলা, এ নিয়ে দ্বিধান্বিত হওয়ার কিছু নেই। যেমনভাবে আপনার স্বস্তি, ঠিক তেমনভাবেই রাখুন। তবে ক্রমাগত একইভাবে চুল বাঁধতে থাকলে চুলে একটু ভাঁজ পড়ে যায় অনেকের। এমন সমস্যা এড়াতে কয়েক দিন পরপর চুল বাঁধার ধরনে পরিবর্তন আনতে পারেন। তবে রাতে চুল বেঁধে ঘুমানোই ভালো। নইলে সহজেই চুলে প্যাঁচ লেগে গিঁট বেঁধে যেতে পারে। রাতে ঘুমানোর আগে চুল বেণি করে নিতে পারেন। সারা দিনে কতবার চুল আঁচড়াতে হবে, এর কোনো বাঁধাধরা নিয়ম নেই। প্রয়োজন অনুসারে চুল আঁচড়ানোই যথেষ্ট। চুল নিয়ে কখনোই খুব বেশি টানাটানি করবেন না।

খাদ্যাভ্যাস ঠিকঠাক

যত্নে পরিপূর্ণতা আনতে সঠিক খাদ্যাভ্যাস গড়ে তোলা প্রয়োজন। ভিটামিন ও মিনারেল সমৃদ্ধ উপাদান গ্রহণ করুন প্রতিদিন। তাজা ফলমূল ও সবজি খাবার অভ্যাস করুন। পর্যাপ্ত পানি পান করুন।
বাড়তি যত্নের জন্য
চুল রেশমি-কোমল ও উজ্জ্বল রাখতে সপ্তাহে একদিন প্যাক লাগানো প্রয়োজন। প্যাক লাগিয়ে আধঘণ্টা পর শ্যাম্পু করে ফেলতে হবে।
রাহিমা সুলতানা জানালেন এমন দুটি প্যাকের কথা।
১. আধা কাপ টকদই, ১টি ডিম, ১ টেবিল চামচ মধু ও একটি পাকা কলা মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন। সাদা চুল থাকলে এই প্যাকে মেহেদি যোগ করে নেওয়া যায়।
২. আমলকী, হরীতকী, শিকাকাই, মেথি, মেহেদি ও টকদই মিশিয়ে অন্য একটি প্যাক তৈরি করা যায়। এ‌খানে টকদই বাদে বাকি সব উপকরণ নিতে হবে এক টেবিল চামচ করে। টকদই নিন এক কাপ।
MD. Rasel Rana

MD. Rasel Rana

Blogger দ্বারা পরিচালিত.