Breaking News
recent

Valobaser Golpo-----বিবাহিতা প্রেমিকা,,....................................


Related image
বিবাহিতা প্রেমিকা,,,,,
আশা করি সবার কাছে গল্পটা ভাল লাগবে।
--------
মীমের সাথে ফেইসবুকে পরিচয় আমার,
মেয়েটা সব দিক দিয়েই সত্যি অসাধারণ।।
যাকে খালি চোখে দেখে বুজার উপায় নেই,
যে মানুষ এত ভালো হয় কি ভাবে....?
লাইফে কখনো এমন মেয়ে তো দূরে কথা,এতটা
ভাল মানুষ আগে দেখেছি কিনা সন্ধেহ আছে,
মীম প্রথম থেকেই খুব ভালোবাসে আমায়।
তার ধারাবাহিকতায় সে তার নিজের জীবনের
বিনীময়ে হলেও আমার বিপদে সব সময়
পাশে থাকতে চেস্টা করে।
কিন্তু মীমের ভালোবাসা যেন সেলফিস হতে
সেখায় আমায়।
তার ভালোবাসার বিপরিতে সব সময় অবহেলা
করে গিয়েছি তাকে ।কখনো তার ভালোবাসার
প্রাপ্য মর্যাদা দেয়া তো দূরে কথা কিছু সময়
তার সাথে কথা বল্টাও বিরক্তবোধ করতাম।
.
এক কথায় সে একক ভাবেই ভালোবেসে গেছে আমায়,
আমি কখনোই মীমকে ভালোবাসিনি,
শুধু আমার প্রতি তার ভালোবাসা দেখে
মীমকে করুনা করে ভালোবাসার অভিনয়
করে গিয়েছি কিছু সময়।।।।।
.
কারন আমার পক্ষে একজন বিবাহিতাকে
Girl friend হিসেবে মেনে নেয়াটা ছিল অসম্ভব প্রায়
আর আমি মেনে নিলেও সমাজ কিংবা আমার পরিবার কেউ মেনে নিত না মীমকে আমার বউ বলে।
কারন তার বড় পরিচয়, সে একজন বিবাহিতা মেয়ে
.
আমার সাথে পরিচয়ের চার বছর আগে অন্য
একজনের সাথে মীমের বিয়ে হয়েছে যায়,
কিন্তু মীম তা কখনোই মানতে চাইতো না।
সে আমাকেই তার কল্পনার রাজ্যের হাসবেন ভাবতো, আর আমাকে নিয়েই ছিল তার রাজ্য সাজানোর ব্যস্ততা
.
একদিন মীমকে ফাইনালি জানিয়ে দিলাম....
.
--->আমি - মীম তোমাকে কিছু বলার ছিল...
--->মীম - হ্যা নাবিল বলো কি বলবা?
--->আমি - মীম আমি আর পারছিনা!
--->মীম - কি পারছো না নাবিল?
--->আমি - আমার আর এই মিথ্যা অভিনয়
করতে ভালো ভালো লাগেনা।
--->মীম - কিসের মিথ্যা অভিনয়?
--->আমি - তোমার সাথে এই মিথ্যা
ভালোবাসার অভিনয়.....
--->মীম- ওহ, এই বেপার? সমস্যা নাই,
ভালোবাসতে হবেনা আমায়,শুধু কথা বলাটা
বন্ধ করোনা।।।
--->আমি - তাও আর সম্ভব না মীম।
--->মীম - কিন্ত কেন সম্ভব না?
একটা কথা কি জানো নাবিল?
--->আমি - কি কথা..?
--->মীম- পৃথিবীতে মানুষ পারেনা এমন কিছু নেই
শুধু ইচ্ছে শক্তিটাই মুল,ইচ্ছে থাকলে সব সম্ভব।
.
---> আমি - হ্যা যানি,তবে তুমি আমাকে মুক্তি দাও
আমি বড্ড ক্লান্তু,আমি আর পারব না.....
--->মীম- মুক্তি দেয়ার আমি কে নাবিল? অই উপরে
একজন বসে আছেন সেই তোমাকে মুক্তি দিবে,
আর হয়তো সেটি খুব তারাতারি, প্লিজ আর কয়েকটা দিন নাহয় আমার জন্য একটু কষ্ট করো..?
--->আমি - নাহ,আর নয়।তোমার জন্য আমি আমার
জীবনটা নস্ট করতে পারবনা মীম।
.
--->মীম - এ ভাবে বলতে পারলে নাবিল?
যে মানুষটার জন্য নিজের জীবনটা দিতে গিয়েও
হয়তবা একবার ভাব্বো না ঠিক করছি নাকি ভুল,
আর সেই মানুষটার মুখে এই কথাটা সুনার এ হয়ত
বাকি ছিল, যাই হোক বাদ দাও নাবিল, আর কয়েকটা
দিন বিরক্ত করব তোমায়। তার পর মুক্তি নিও বাধা
দিব না তখন,আর প্লিজ ভুল বুজোনা আমি কখনোই
তোমার জীবন নস্ট করতে চাইনা...
.
---> আমি - তো কি চাও...?
--->মীম - আমি তো কিছুই চাইনি কখনো তোমার
কাছে,শুধু চেয়েছি একটু ভালোভাবে কথা বলো
আমার সাথে,সেটাই বড় পাওয়া আমার। আশা করি
আমার সামান্য চাওয়া টুকু পুর্ন করবা তুমি...
.
--->আমি - না,আমার পক্ষে আর তোমার চাওয়া
পাওয়া পুরন করা সম্ভব নয়,আমাকে ভুলে যাও
আর আমাকে মুক্তি দাও তুমি মীম।
--->মীম- হায়রে দুনিয়া? সত্যি মুক্তি চাও?
--->আমি - হুম!
.
আমার পাঠানো শেষ মেসেজটা সিন হওয়ার আগেই
অফলাইনে চলে গেলো মীম,
ভাবলাম মেয়েটা হয়তবা অনেক কষ্ট পেয়েছে আমার
কথায়,তাই রাগ করে অফ লাইনে গেছে,
সমস্যা নাই,এভাবে মুক্তি পেলেও বাচা যায়।।।
.
আজ তিন দিন হয়ে গেল,লাস্ট মেসেজটা সিন হলনা
বেপার কি? আর মীমও অনলাইনে আসতেছে না ক্যা
মেয়েটা পাগলামো করে বসলো না তো কিছু?
.
দেখি একটা ফোন দিয়ে.......
.
ক্রিং ক্রিং ক্রিং ক্রিং ক্রিং , টুড টুড টুড....
.
যাহ,ফোনটা কেটে গেলো, মেয়েটা বোধহয় সত্যি
রাগ করেই তাহলে এবার মুক্তি দিল আমায়।
যাক বাবা বাঁচা গেলো তাহলে এবার।
.
কিন্তু মন কেন যানি সায় দিচ্ছল না সারাক্ষন অনলাইনে গিয়ে মীমকেই খুঁজতাম তার ইনবক্স
চেক করতাম লাস্ট মেসেজটা সিন হয়েছে কিনা।
কিন্তু না,মীম অনালাইনে আসেও নাই আর আমার
মেসেজটা ও সিন হয়না।
.
.এভাবেই দিন কাটতে লাগল আমার
.
মীম অনলাইনে না আসার আজ সপ্তম দিন......
.
দিন পেরিয়ে রাত হল, কিন্তু মীমের কোন খোজ নেই,
কেন যানি খুব মিস করছিলাম মীমকে আজ...
এতটাই মিস করছিলাম মীমকে....
তার কথা ভেবে কখন যে চোখের কোন শিশিরের ফোটার মত চোখ বেয়ে জল পরেই চলছে বুজতেই পারিনি।।।
.
অবশেষে বুজলাম মীমকে আমিও মনের অজান্তে ভালোবাসি কিন্তু এর আগে যা কখনো অনুভব করিনি,
.
মিমের ভালোবাসা অনুভব করতে পেরে পাগলিটাকে
নিয়ে এক রাতেই স্বপ্ন সাজিয়ে ফেল্লাম, আতপর... মীমকে ভাবতে ভাবতে ফোনটা বুকে নিয়ে
কখন যে ঘুমিয়ে পরলাম নিজেও জানিনা....
.
পরের দিন সকাল ৯:৩০ এ ঘুম ভাংলো আমার,
অভ্যাস অনুযায়ী যথারিতি ফেইসবুকে লগইন করলাম, লগইন করে এত বড় খুশির খবর আমার জন্য অপেক্ষা
করবে তা কখনো স্বপ্নে ও ভাবতে পারিনি আমি।।।
.
কে যেন একটা মেসেজ দিয়ে রাখছে,দেখি মেসেজটা
সিন করে, তারপর ......
.
ভাইয়া আমি যানি নিশ্চয় আপনার জন্য অনেক
বড় খুশির খবর হবে এটা, আপনার পথের কাটা,
মীম আপু আজ সাত দিন আগে মারাত্নক ভাবে
স্টক করছে,আর আজ ভোরে মরন বেদি ব্রেন
ক্যানসার তাকে সংগি করে নীল আকাশে নিয়ে
গেছে, ভাইয়া যে কথাটি আপু আপনার কাছে
লুকিয়ে রেখেছিল সেটি হচ্ছে আপু বিবাহিতা ছিলনা,
আপু আপনাকে বানিয়ে মিথ্যা কথাটি বলছে কারন
কি যানেন? আজ থেকে চার বছর আগে তার শরিরে
ব্রেন ক্যান্সার ধরা পরে, কিন্তু আপনি তাকে ভালোবেসে
কষ্ট পাবেন বলে সে আপনাকে তার কাছ থেকে দুরে
রাখার চেস্টাই করে গেছে সবসময়। সে চায়নি তার
এই সল্প সময় আপনি তাকে ভালোবেসে কষ্ট পান।
কিন্তু চেয়েছিল যে টুকু সময় বাঁচবে সেটুকু সময়
আপনার ভালোবাসায় নিজেকে মুরিয়ে রাখতে,কিন্তু
ভাগ্যের কি নির্মাম পরিহাস আপুর শেষ ইচ্ছে টুকু
পুরন হলনা কিংবা আপনি হতে দিলেন না।
..
মেসেজটা সিন করে পুরোটা পরে যেন নিস্তব্ধ হয়ে
গেলাম আমি, চিতকার করে কাঁদছি কিন্তু হচ্ছেনা
কোন আওয়াজ। কলিজাটা যেন ছিরে গেল, তবুও
দেখার কেউ নেই। ভালোবাসার স্বপ্ন বাধতেই
কাছের ঘরের মত যেন ভেংগে গেল সব। দিন শেষে
আমার আত্নচিতকার কিংবা রিদয় ভাংগার কান্না
কারো কাছে পৌছালো না। শেষের ভালোবাসায়
স্বার্থ পর কিংবা অপরাধি হয়েই গেলাম......
.
বিঃদ্রঃ- সময় থাকতে ভালোবাসার মূল্য দিতে সিখুন
নিজে ভাল থাকুন অপরকেও ভাল থাকার সুযোগ দিন।
MD. Rasel Rana

MD. Rasel Rana

Blogger দ্বারা পরিচালিত.