Breaking News
recent

স্যামসাংকে টপকাল অ্যাপল।



         স্যামসাংকে টপকাল অ্যাপল।



স্মার্টফোনের বাজারে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিষ্ঠান স্যামসাংকে পেছনে ফেলে শীর্ষে উঠে গেল মার্কিন প্রতিষ্ঠান অ্যাপল। পাঁচ বছর ধরে স্মার্টফোনের শীর্ষ প্রতিষ্ঠান ছিল স্যামসাং। গতকাল মঙ্গলবার বিশ্বের শীর্ষ স্মার্টফোন নির্মাতার অবস্থান পরিবর্তনের এ ঘটনা ঘটেছে। আজ বুধবার বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে।
বাজার বিশ্লেষকেদের চোখে, ছুটির মৌসুমে আইফোন বিক্রি বেড়ে যাওয়া ও আইফোন ৭ প্লাসের চাহিদা বাড়ায় স্যামসাংকে পেছনে ফেলতে সক্ষম হয়েছে অ্যাপল। আইফোন বিক্রির সংখ্যা ও ১ হাজার ৮০০ কোটি মার্কিন ডলার মুনাফা ওয়াল স্ট্রিটের পূর্বাভাসকে ছাড়িয়ে গেছে।
গত অক্টোবর থেকে ৩১ ডিসেম্বর শেষ হওয়া প্রান্তিক বা অ্যাপলের প্রথম প্রান্তিকে ৭৮ দশমিক ২৯ মিলিয়ন আইফোন বিক্রি হয়েছে। ২০১৫ সালে বিক্রি হয়েছিল ৭৪ দশমিক ৭৮ মিলিয়ন আইফোন। বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান ফ্যাক্টসেট স্ট্রিট অ্যাকাউন্টের তথ্য অনুযায়ী, বিশ্লেষকেরা ধারণা করেছিলেন, ৭৭ দশমিক ৪২ মিলিয়ন আইফোন বিক্রি হবে। কিন্তু এই পূর্বাভাস ছাড়িয়ে গেছে অ্যাপল।
বাজার বিশ্লেষকেরা বলেন, স্যামসাং ইলেকট্রনিকসের ওই প্রান্তিকে ৭৭ দশমিক ৫ মিলিয়ন ইউনিট স্মার্টফোন বিক্রি করেছে।
বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান স্ট্র্যাটেজি অ্যানালাইটিকসের তথ্য অনুযায়ী, ২০১১ সালের চতুর্থ প্রান্তিকের পর স্যামসাংকে টপকাল অ্যাপল।
বাজার গবেষকেরা বলছেন, যখন বৈশ্বিক পর্যায়ে স্মার্টফোনের চাহিদা কমছে এবং তুলনামূলক সাশ্রয়ী অ্যান্ড্রয়েড ফোনগুলো বাজার দখল করছে, তখন প্রথম প্রান্তিকে আইফোনের এ তথ্য জানা গেল। এতে অবশ্য স্যামসাংয়ের গ্যালাক্সি নোট ৭ বাজার থেকে তুলে নেওয়ার ঘটনায় অ্যাপলের সুবিধা পাওয়ার বিষয়টি থাকতে পারে।
অ্যাপল আইফোন থেকে আসা লাভের ওপর অধিকাংশ নির্ভর করে। প্রতিষ্ঠানটির মোট আয়ের দুই-তৃতীয়াংশ আসে আইফোন বিক্রির লাভ থেকে।
বিশ্লেষক ও বিনিয়োগকারীরা অ্যাপলের আইফোনের দশকপূর্তি উপলক্ষে নতুন আইফোনের আশায় রয়েছে। নতুন আইফোনে উন্নত টাচস্ক্রিন প্রযুক্তি, তারহীন চার্জিং এবং ওএলইডি ডিসপ্লের আশা করছেন।
অ্যাপলের প্রধান নির্বাহী টিম কুক বলেছেন, বড় মাপের আইফোন ৭ প্লাসের জন্য বছরের প্রথম প্রান্তিকে চাহিদা বেশি ছিল।
অ্যাপলের সেবা খাতের ব্যবসা বিশেষ করে অ্যাপ স্টোর, অ্যাপল পে ও আইক্লাউডের ক্ষেত্রে আয় ১৮ দশমিক ৪ শতাংশ বেড়ে ৭১৭ কোটি মার্কিন ডলারে দাঁড়িয়েছে। জনপ্রিয় গেম পোকেমন গো, সুপার মারিও রানের আয়ও বেড়েছে। তথ্যসূত্র: রয়টার্স।
MD. Rasel Rana

MD. Rasel Rana

Blogger দ্বারা পরিচালিত.